ডাটা রিকভারি কি, কেন এবং কিভাবে কাজ করে?

ডাটা রিকভারি কি

তথ্য প্রযুক্তির যুগে তথ্য বা ডাটা যে কত গুরুত্বপূর্ণ জিনিস তা সেই বুঝে, যে তার কোনো গুরুত্বপূর্ণ ডাটা হারিয়ে ফেলে। এমন পরিস্থিতির শিকার হননি, তেমন মানুষ খুঁজে পাওয়া ভার। আর এমন পরিস্থিতিতে পড়ার পর যে বিষয়টি সবার আগে মাথায় আসে তা হলো-

 

‘ডাটাগুলো রিকভার করবো কীভাবে? এ বিষয়ে অনেকেরই তেমন ধারনা না থাকার কারণে ডাটা রিকভার তো দূরের কথা, হিতে বিপরীত হয়। মূলত তাদের জন্যই আমরা আজকে ডাটা রিকভারি নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করবো।

 

ডাটা রিকভারি কি, কেন এবং কিভাবে কাজ করে

 

আচ্ছা ছোট একটা গল্প দিয়ে শুরু করি – অনেক প্রতিক্ষার পর পাওয়া রিফাতের চাকরিটি আজ হারানোর পথে। সে একটি প্রাইভেট কোম্পানিতে কম্পিউটার অপারেটর হিসেবে চাকরি করতো। গতকাল ভুলবসত সে তার অফিসের কম্পিউটারের একটি গুরুত্বপূর্ণ ফাইল ডিলিট করে ফেলে। অফিস কর্তৃপক্ষ বিষয়টি জানার পর তাকে জানিয়ে দেয়, যেকোনো ভাবেই হোক, ফাইলগুলো যেন সে উদ্ধার করে। নতুবা তার চাকরি থাকবে না।

 

চাকরি হারানোর চিন্তায় রিফাত মন খারাপ করে রুমে বসে আছে। তার মন খারাপ দেখে রুমমেট সিয়াম জিজ্ঞাস করলো, “কী ব্যাপার রিফাত, ভাই! মন খারাপ করে বসে আছেন যে?” তারপর রিফাত সিয়ামকে বিস্তারিত খুলে বলার পর সিয়াম বললো, “এতো টেনশনের কী আছে? আপনি যে ডাটাগুলো ভুলে ডিলিট করছেন সেগুলো রিকোভার করে নিলেই তো হয়।” রিফাত বললো, “কিন্তু এই ‘ডাটা রিকোভারি’ জিনিসটা আসলে কী?”

 

“ও আচ্ছা, আপনি এসব সম্পর্কে হয়তো তেমন জানেন না৷ আমি আপনাকে ‘Data Recovery’ সম্পর্কে বিস্তারিত ধারনা দিচ্ছি।” – এই বলে সিয়াম ডাটা রিকোভারি সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা শুরু করলো।

 

বর্তমানে আমরা প্রযুক্তির যুগে বসবাস করছি। প্রযুক্তির বিপ্লবই আমাদের জীবনমানকে অনেক এগিয়ে নিয়ে গেছে এবং সবকিছু সহজলভ্য করে দিয়েছে। এক কথায় বলতে গেলে, বর্তমানে প্রযুক্তিই আমাদের জীবনযাত্রাকে নিয়ন্ত্রণ করছে।

 

এই যেমন মোবাইল ফোন, কম্পিউটার আমাদের প্রত্যাহিত জীবনের এক অবিচ্ছেদ্য গ্যাজেট হিসেবে জায়গা করে নিয়েছে। এছাড়াও বিভিন্ন সার্ভার, ডিএসএলআর, ক্যামেরা, ড্রোন, সিসিটিভি সহ আরো কত কিছুইনা আমরা ব্যবহার করে থাকি। আর এসবের মধ্যেই প্রয়োজনীয় যত ফটো, টেক্সট, অডিও, ভিডিও, ডকুমেন্টস অর্থাৎ যাবতীয় ডাটা সংরক্ষিত থাকে।

 

ডাটা কী?

 

সাধারণ অর্থে ডাটা মানে তথ্য বা ইনফরমেশন। যে গুলো Photo, Text, Audio, Video, Documents ইত্যাদি যেকোনো ফরমেটে থাকতে পারে৷ আমাদের তথ্যগুলো মূলত এসব ফরমেটেই হার্ড ড্রাইভ, পেন ড্রাইভ, এসডি কার্ড, সিডি, ডিভিডি ইত্যাদি বিভিন্ন স্টোরেজে সংরক্ষণ করে থাকি। আর অনেক সময় অনাকাঙ্ক্ষিতভাবে এই মূল্যবান ডাটাগুলো ক্ষতিগ্রস্ত হয় অর্থাৎ নষ্ট বা হারিয়ে যায়।

 

ডাটা কীভাবে ক্ষতিগ্রস্ত বা নষ্ট হতে পারে?

 

অনাকাঙ্ক্ষিত এমন অনেক ভাবেই আপনার মহামূল্যবান ডাটা সমূহ হারিয়ে যেতে পারে। তবে সাধারণত –

• ভুলে ফাইল ডিলিট হয়ে গেলে;
• হার্ড ডিক্স ক্রাশ করলে বা অকেজো হয়ে গেলে;
• সফটওয়্যারে কোনো ত্রুটি দেখা দিলে;
• কোনো ভাইরাসের আক্রমণ হলে;
• ডাটা করাপশন হলে;
• হ্যাকিংয়ের শিকার হলে;
• অপারেটিং সিস্টেমে কোনো সমস্যা থাকলে;
• হার্ড ডিক্সের হার্ডওয়্যার ক্ষতিগ্রস্ত হলে;
• এমনকি বিদ্যুতের পাওয়ার উঠানামা করার ফলেও আপনার ডাটা ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে। এছাড়াও আরো বিভিন্ন কারণে হতে পারে।

এখন উপরোক্ত কোনো কারণে যদি আপনার মূল্যবান ডাটাগুলো হারিয়ে ফেলেন, তখন কী করবেন? নিশ্চয়ই ডাটাগুলো রিকোভার করার চেষ্টা করবেন!

 

আসুন, তার আগে জেনে নিই ‘Data Recovery’ কী?

 

সাধারণত ডিলিট বা নষ্ট হয়ে যাওয়া হার্ড ড্রাইভ, মেমোবি বা যেকোনো স্টোরেজ থেকে সেই তথ্য সমূহ উদ্ধার করার প্রক্রিয়াকে ‘ডাটা রিকোভারি’ বলে। অর্থাৎ আপনার যে ডাটা বা তথ্যগুলো আপনি কোনো কারণে হারিয়ে ফেলেছিলেন, সেগুলো কোনো টুলস, সফটওয়্যার বা হার্ডওয়্যার দ্বারা নিবির পর্যবেক্ষণের মাধ্যমে উদ্ধার করাকেই ডাটা রিকোভারি বলে।

 

আসলেই কি ডাটা রিকোভার করা সম্ভব?

 

জি, অবশ্যই সম্ভব। বর্তমানে ডাটা রিকোভার প্রযুক্তিতে বেশ ভালো বিপ্লব ঘটেছে। তাই আজকাল বিভিন্ন কারণে নষ্ট বা হারিয়ে যাওয়া Data গুলোকে উদ্ধার করা সম্ভব হয়। তবে কত সহজে ডাটাগুলো রিকোভার করতে পারবেন, সেটা নির্ভর করবে কীভাবে আপনার ডাটাগুলো হারিয়েছিল তার উপর।

 

ডাটা রিকভারি সার্ভিস
ডাটা রিকভারি সার্ভিস

 

কোনো কোনো ক্ষেত্রে ডাটা রিকোভার করতে কিছু Data Recover Tools বা Software এর প্রয়োজন হয়। আজকাল অনলাইনেই অনেক টুলস ও সফটওয়্যার পাওয়া যায়, যেগুলো বেশ কার্যকরী। এগুলোর মধ্যে কিছু রয়েছে ফ্রি আর কিছু রয়েছে পেইড। তবে আপনাদের প্রতি সাজেশন থাকবে, গুরুত্বপূর্ণ কোনো কাজে অবশ্যই পেইড টুলস বা সফটওয়্যার ব্যবহার করার চেষ্টা করবেন।

 

আবার কোনো কোনো ক্ষেত্রে শুধুমাত্র ডাটা রিকোভারি টুলস বা সফটওয়্যার দিয়েও কাজ হয় না। সরাসরি ল্যাবে নিয়ে হার্ডওয়্যারের পরীক্ষা-নিরিক্ষা, পর্যালোচনা করে অত্যান্ত সুক্ষ্মভাবে ডাটা রিকোভার করতে হয়। অনেক ক্ষেত্রে আপনার ডিলিট বা ফরমেট হওয়া ডাটাগুলো হয়তো আপনি কোনো টুলস বা সফটওয়্যার দ্বারা রিকোভার করতে পারবেন। কিন্তু সবক্ষেত্রে এই রিক্স নেওয়া আপনার জন্য মঙ্গল নাও হতে পারে। আপনি যেহেতু Data Recovery সম্পর্কে এক্সপার্ট নন, তাই আপনার সামান্য ভুলেও চিরতরে হারিয়ে যেতে পারে আপনার মহামূল্যবান ডাটা গুলো।

 

সাধারণত ডিলিট বা ফরমেট হওয়া ডাটা, করাপ্টেড ফাইল রিকোভার করা আর ফিজিক্যালি ক্ষতিগ্রস্ত হওয়া হার্ড ড্রাইভ হতে ডাটা রিকোভার করা এক নয়৷ এমতাবস্থায় ফ্রি বা স্বল্প মূল্যের কোনো টুলস বা সফটওয়্যার আপনার ডাটা রিকোভার করতে সক্ষম নাও হতে পারে। তাই এ ধরনের কোনো সমস্যার সম্মুখীন হলে চেষ্টা করবেন অতি দ্রুত কোনো ডাটা রিকোভারি এক্সপার্টের শরণাপন্ন হতে।

 

কিন্তু সমস্যা হলো, কোথায় পাবেন সেই ডাটা রিকোভারি এক্সপার্টদের? চিন্তার কোনো কারণ নেই, বাংলাদেশেই রয়েছে অত্যাধুনিক ডাটা রিকোভারি ল্যাব ‘Data Recovery Station’। বাংলাদেশে আমরাই সর্বপ্রথম এবং একমাত্র উন্নত প্রযুক্তি ব্যবহারের মাধ্যমে শতভাগ ডাটা রিকোভারি করে থাকি। ১ যুগেরও বেশি সময় ধরে আমরা ৬৬০০+ ব্যক্তি, ব্যাংক, মাল্টিন্যাশনাল কোম্পানি ও প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠানের ডাটা রিকভারি করে দিয়েছি। অতএব আমাদের অভিজ্ঞ টিম আপনার হারিয়ে যাওয়া বা নষ্ট হওয়া যে কোনো ডাটা রিকোভার করে দিতে সদা প্রস্তুত।

 

বাংলাদেশে সবচেয়ে ডিফিকাল্ট ডাটা রিকভারি কেইসগুলো আমরাই সমাধান করি। এর পেছনের বড় একটা কারণ হলো, আমাদের রয়েছে বিভিন্ন দেশের নম্বর 1 টেকনোলজির কালেকশন এবং ডেডিকেটেড ডাটা রিকোভারি ল্যাব। এতএব আপনার প্রত্যেকটি ডাটা আমরা গুরুত্ব ও সফলতার সাথে রিকোভার করার নিশ্চয়তা দিয়ে থাকি।

 

ডাটা রিকভারিতে ব্যর্থতা ও সফলতার পরিসংখ্যান।

 

যেহেতু প্রযুক্তির যুগ, আমাদের দৈনন্দিন জীবনের প্রয়োজনে এমন অনেক ডাটাই সংরক্ষণ করে রাখতে হয়। বিশেষত বিভিন্ন কোম্পানির যাবতীয় ডাটা সমূহ বিভিন্ন স্টোরেজেই সংরক্ষিত থাকে। আর এসব সংরক্ষিত ডাটা সমূহ অনেকাংশে যথেষ্ট সিকিউরিটি মেইনটেন করে রাখা হয় না। যার ফলেই ঘটে বিপত্তি।

 

• Varonis কর্তৃক 2019 Global Data Risk Report এর তথ্যমতে সারাবিশ্বের যত কোম্পানির ব্যবহৃত ফাইল আছে তাদের ২২% ফাইল কোনো সিকিউরিটি ছাড়াই যে কেউ ব্যবহার করতে পারে।

 

• সারাবিশ্বের ২৮% ডাটা ম্যালওয়ার এ আক্রান্ত হয়।

 

• ২০২০ সালের জানুয়ারি থেকে মার্চ মাসের রিপোর্ট অনুযায়ী হার্ড ড্রাইভের ক্রাশের হার ১.০৭%। শুধুমাত্র USA তে প্রতি সপ্তাহে ১৪০,০০০ হার্ড ড্রাইভ ক্রাশ করে।

 

• ৪০% ছোট বিজনেস প্রতিষ্ঠানগুলোর যাবতীয় ডাটার এক্সেস হ্যাকারদের কাছে থাকে। এবং হতাশার বিষয় হলো, তাদের মধ্যে ৫০% এর অধিক বিজনেস প্রতিষ্ঠান এটা বুঝতেই পারে না।

 

• বছরে প্রায় ২০% ছোট বিজনেস প্রতিষ্ঠানের ডাটা হ্যাকিংয়ের শিকার হয়।

 

• ২২% ছোট কোম্পানি রেনস্যামওয়্যার ভাইরাসে আক্রান্ত হয়। তবে এক্ষেত্রে ৯৭% ডাটাই রিকোভারি করা সম্ভব হয়। যদিও ততক্ষণে কোম্পনিগুলোর ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ গিয়ে দাঁড়ায় প্রতি মিনিটে ৫,৬০০ ডলার।

 

অতএব আপনার নিজের বা কোম্পানির অসতর্কার কারণে যে কোনো সময় বিশাল ক্ষতির সম্মুখীন হতে পারেন। যদিওবা ডাটাগুলো পূনরায় উদ্ধার করা সম্ভব হয়।

 

ডাটা রিকভারি কীভাবে কাজ করে?

 

আপনি যখন কোনো ডাটা ভুলে বা ইচ্ছাকৃত ডিলিট করে ফেলেন; আপনি কি আসলেই ড্রাইভ হতে সেই ডাটা ডিলিট করতে পারেন? অবশ্যই না। আপনি যখন কোনো ডাটা আপনার ড্রাইভ থেকে ডিলিট করেন তখন সেটা আপনার অপারেটিং সিস্টেমে শো না করলেও ড্রাইভে ঠিকই থেকে যায়। এবং আপনি যতক্ষণ না নতুন কোনো ডাটা ড্রাইভে যুক্ত করছেন ততক্ষণ সেই ডিলিট করা ডাটাগুলো অক্ষত অবস্থায় থাকে৷ যা Recover করার পসিবিলিটি ১০০%।

 

ডাটা রিকভারি কিভাবে কাজ করে
ডাটা রিকভারি কিভাবে কাজ করে

এক্ষেত্রে ডাটা রিকভারি সফটওয়্যার গুলো অনেক জটিল এলগোরিদম ব্যবহার করে ড্রাইভে থাকা আপনার ডিলিটকৃত ডাটাগুলোর প্রকৃত লোকেশন খুঁজে বের করার চেষ্টা করে। যদি সেই টুলস বা সফটওয়্যার আপনার ডিলিটকৃত বা হারিয়ে যাওয়া ডাটাগুলোর সঠিক লোকেশনে বের করতে পারে তবেই আপনি আপনার ডাটাগুলো ফিরে পাবেন৷ নতুবা আপনাকে হতাশ হতে হবে।

 

তাই কখনো যদি এমন পরিস্খিতির শিকার হন তাহলে নিজে এক্সপার্ট না হলে যত দ্রুত সম্ভব একজন ডাটা রিকোভার এক্সপার্টের সম্মুখীন হবেন। আরেকটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হলো, কোনো ডাটা ডিলিট বা হারিয়ে গেলে ইন্টারনেট ব্রাউজ করা থেকে বিরত থাকবেন এবং তাৎক্ষণিক আপনার ডিভাইসটি বন্ধ করে ফেলবেন। নতুবা অজ্ঞাতবসত আপনার ড্রাইভে নতুন কোনো ডাটা যুক্ত হলেই ড্রাইভে রিড-রাইট প্রসেস চলবে। ফলে ডিলিটকৃত ডাটার উপর নতুন ডাটাগুলো প্রতিস্খাপিত হয়ে ওই ডাটাগুলো রিমুভ হয়ে যেতে পারে। পরে সেই ডাটাগুলো রিকোভার করতে পারার সম্ভাবনা অনেকাংশে কমে আসবে।

 

কীভাবে Data Recover করে?

 

স্বাভাবিকভাবেই ডাটা রিকোভারি কোনো সহজ কাজ নয়। এ সম্পর্কে এক্সপার্ট ছাড়া যে কারো দ্বারা ডাটা রিকোভারিতে সফল হবার সম্ভাবনা অনেক কম। আপনি যখন এ ধরনের কোনো সমস্যা নিয়ে কোনো ডাটা রিকোভারি এক্সপার্টদের শরণাপন্ন হবেন তখন সর্বপ্রথম তারা জানতে চাইবে, ‘আপনার ডাটাগুলো নষ্ট বা হারানোর কারণ কী?’ তারা বিস্তারিত জানার পর আপনার ড্রাইভটি নিয়ে ল্যাবে পরিক্ষা-নিরিক্ষা, পর্যালোচনা করার পর সমস্যা চিহ্নিত করে তা সমাধানের চেষ্টায় মগ্ন থাকবে।

 

বিশেষত ড্রাইভের ফিজিক্যাল কোনো ক্ষতি হলে তা থেকে ডাটা রিকোভার করা বেশ কষ্টসাধ্য একটি ব্যাপার৷ এ ধরনের কাজগুলো নির্দিষ্ট ল্যাবে করতে হয়৷ ল্যাবটি হতে হয় বদ্ধ, অত্যান্ত পরিষ্কার ও নিয়ন্ত্রণ পরিবেশের। যেন একটি ধূলিকণাও হার্ডড্রাইভকে স্পর্শ করতে না পারে। কারণ একটি হার্ডড্রাইভকে পুরোপুরি অকেজো করার জন্য এতটুকুই যথেষ্ট। এমনকি ডাটা রিকোভারি এক্সপার্টদের কাজের সময় বিশেষভাবে ডিজাইন করা পোষাক পরিধান করতে হয়।

 

তারপর একজন এক্সপার্ট বিভিন্ন টুলস, সফটওয়্যার ও হার্ডওয়্যারের মাধ্যমে কয়েকটি ধাপ অনুসরণ করে পূঙ্খানুপুঙ্খভাবে পর্যালোচনা করে ডিলিটকৃত ডাটাগুলোর লোকেশন খুঁজে বের করে ডাটা রিকভার করতে সক্ষম হন। আর আপনিও ফিরে পেতে পারেন আপনার মহামূল্যবান ডাটাগুলো।

 

সংবিধিবদ্ধ সতর্কীকরণ: আপনার ডাটাগুলো শুধু মাত্র ডাটাই না। অনেক গুরুত্বপূর্ণ কিছু, অথবা ব্যক্তিগত অনেক কিছুই হতে পারে। তাই ডাটা রিকোভারি সার্ভিস নেয়ার জন্য আপনাকে প্রথমেই ভাবতে হবে, আপনি সেইফ হ্যান্ডে দিচ্ছেন তো? ল্যাব আছে কিনা? তাদের অভিজ্ঞতা কতটুকু? প্রয়োজনীয় টেকনোলজি আছে কিনা? নাকি শুধুই সাইন বোর্ড?

 

কারণ আপনার মূল্যবান ডাটাগুলো যারতার কাছে গেলে আপনার অনেক ক্ষতির কারণ হতে পারে। তাই এ ধরনের কোনো সমস্যার সম্মুখীন হলে যারতার নিকট সমাধান খুঁজার চেষ্টা না করে অবশ্যই বিশ্বস্ত এবং এক্সপার্ট কোনো প্রতিষ্ঠানের শরণাপন্ন হবেন। অর্থের দিক থেকে কম-বেশি খরচ হলেও আপনার ডাটা যেন নিরাপদ থাকে, সেদিকে লক্ষ্য রাখবেন।

 

এক্ষেত্রে Data Recovery Station হতে পারে আপনার বিশ্বস্ত ডাটা রিকোভারি প্রতিষ্ঠান। Data Recovery Station এর সাথে থাকুন, আপনার ডাটা সমূহকে নিরাপদে রাখুন।

 

For any data recovery service click below –

 

Data Recovery Service in Bangladesh

Data Recovery Pricing in Bangladesh

Share With

Share on facebook
Share on twitter
Share on email

You may also like

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Most Popular Post

Have You Lost Data!

We have ability of recuperating your data from all kind of digital storage devices