পাওয়ার সাপ্লাই কি? এর ব্যবহার এবং কোনটা ভালো?

পাওয়ার সাপ্লাই কি

কম্পিউটারের অন্যতম জরুরি একটা পার্ট হচ্ছে পাওয়ার সাপ্লাই। কারন এই অংশটা সমগ্র কম্পিউটারে সঠিকভাবে বিদ্যুৎ সরবরাহ করে থাকে। আমরা যখন কম্পিউটার বিল্ড করতে যাই, তখন এটার বিষয়ে ভালো নলেজ না থাকার কারনে দোকানে আমরা সাধারণত বলি যেকোন একটা পাওয়ার সাপ্লাই দিয়ে দিতে। যার ফলে, অনেকেই বাজে পাওয়ার সাপ্লাই কিনে ফেলে নিজের অজান্তেই।

 

একটা বাজে পাওয়ার সাপ্লাই কম্পিউটারে নানা ধরনের বাজে ইমপ্যাক্ট তৈরি করতে পারে। তাই আমরা আজকের এই ব্লগ পোস্টে শিখবো, পাওয়ার সাপ্লাই কি? কি কি কাজে ব্যবহার করা হয় এবং কোন পাওয়ার সাপ্লাইটি বেশী ভালো। আপনার যত প্রশ্ন আছে পাওয়ার সাপ্লাই নিয়ে, সব প্রশ্নের উত্তর আশা করি, এই ব্লগ পোস্টের মধ্যে পেয়ে যাবেন।

 

পাওয়ার সাপ্লাই কি?

 

যেকোন ধরনের ইলেকট্রনিক ডিভাইস চলার জন্য সেখানে পাওয়ারের প্রয়োজন হয়। সেই পাওয়ারটা হচ্ছে বিদ্যুৎ বা ইলেকট্রিসিটি। ঠিক তেমনই কম্পিউটার সচল রাখতে ও পাওয়ার প্রয়োজন হয়। আর সেই পাওয়ার নিরবচ্ছিন্ন ভাবে প্রদান করতে থাকতে পাওয়ার সাপ্লাই। পাওয়ার সাপ্লাই কম্পিউটারের প্রতিটা যন্ত্রাংশে সঠিক ভাবে পাওয়ার সাপ্লাই করে যায়। এটা যদি সঠিক ভাবে পাওয়ার সাপ্লাই না করতে পারে, তাহলে কম্পিউটারের বিভিন্ন যন্ত্রাংশে নানা ধরনের সমস্যা দেখা দিতে পারে। যেমনঃ অটো রিস্টার্ট হওয়া, হ্যাং করা, স্লো হয়ে যাওয়া সহ আর নানাবিধ।

 

তাই এটা কম্পিউটারের জন্য খুবই জরুরি একটা অংশ। বাজারে নানা ধরনের, নানা ব্র্যান্ডের পাওয়ার সাপ্লাই কিনতে পাওয়ার যায়। আপনার জন্য আদর্শ কোনটা সেটা আপনাকে খুজে বের করতে হবে এবং এর পরেই আপনি সঠিক আউটপুট পেতে থাকবেন।

 

পাওয়ার সাপ্লাইকে ইংরেজিতে Power Supply Unit বা PSU ও বলা হয়ে থাকে।

 

পাওয়ার সাপ্লাই এর কাজ কি?

 

এবার আমরা জানবো পাওয়ার সাপ্লাইয়ের কাজ গুলো কি কি। সাধারণভাবে আমরা জানি পাওয়ার সাপ্লাই এর মূল কাজ হচ্ছে বিভিন্ন কম্পোনেন্ট এর মধ্যে ডিস্ট্রিবিউট করে দেওয়া। কিন্তু এটা ছাড়াও পাওয়ার সাপ্লাইয়ের আরো কিছু কাজ রয়েছে। আসুন সেগুলো জেনে নেয়া যাকঃ

 

১। ইনভার্টারঃ

 

ইনভার্টার হচ্ছে পাওয়ার সাপ্লাই এর প্রথম স্টেপ, এই স্টেপের মধ্যে সাধারণত ডিসি কারেন্ট কে এসি কারেন্টে রূপান্তর করা হয়। এই কাজটা যে পাওয়ার সাপ্লাই অনেক ইফিসিয়েন্সির সাথে করে থাকে সেই পাওয়ার সাপ্লাই মূলত ভালো কোয়ালিটির।

 

২। ভোল্টেজ কনভার্টারঃ

 

আপনার বোর্ডের যখন প্রয়োজনের তুলনায় বেশি কিংবা কম থাকে তখন সে ভোল্টেজকে কনভার্ট কিংবা রেক্টিফাই করে সেটা কে সঠিকভাবে কম্পিউটারের প্রধান করার দায়িত্ব হচ্ছে ভোল্টেজ কনভার্টারের।

 

৩। আউটপুট রেগুলেটরঃ

 

অনেকগুলা ইন্ডাক্টর এবং ক্যাপাসিটর দিয়ে পরিপূর্ণ এই অংশ মূলত রেকটিফায়ার আউটপুটকে স্মুথ করার কাজ করে থাকে।

 

Read More: হার্ডডিস্ক ডাটা রিকভারি কি? কীভাবে এবং কোথায় করবেন?

 

কোন পাওয়ার সাপ্লাই ভালো?

 

পাওয়ার সাপ্লাই কোনটা ভালো, সেটা বলার আগে এটুকু বলে নেওয়া উচিত যেঃ আমাদের কখনোই ব্র্যান্ডেড পাওয়ার সাপ্লাই ছাড়া অন্য কোন পাওয়ার সাপ্লাই ব্যবহার করা কোন ভাবেই উচিত না। আমি এখানে আপনাদের সাথে এমন কিছু কারন শেয়ার করবো, যার ফলে আপনারা বুঝতে পারবেন যে আসলে কেন আমাদের ব্র্যান্ডের পাওয়ার সাপ্লাই ব্যবহার করা উচিতঃ

 

১। ওভারভোল্টেজ প্রটেকশন খুবই জরুরি একটা ফিচার, যা সাধারন মানের পাওয়ার সাপ্লাইয়ে থাকে না। এটা না থাকার ফলে আমাদের বিদ্যুৎ যদি বেশী ভোল্ট দিতে শুরু করে, তাহলে শর্ট সার্কিট হয়ে আমাদের পিসিতে অনেক সমস্যা দেখা দিতে পারে। কিন্তু ব্র্যান্ডেড PSU তে এই ফিচারটা থাকে, যার ফলে ওভারভোল্টেজে ও আপনার ডিভাইস থাকে সম্পুর্ন নিরাপদ।

 

২। ব্র্যান্ডেড PSU গুলোর মধ্যে আপনি পাওয়ার Efficiency Rating পাবেন, যার দ্বারা আপনি বুঝতে পারবেন যে সেটা আসলেই কতটা পাওয়ার বাঁচায় এবং সহজ কথা তারা বিদ্যুৎ সাশ্রয়ী।

 

৩। ব্র্যান্ডেড PSU গুলোর মধ্যে রয়েছে অত্যন্ত উন্নতমানের Components যা কি না সঠিক ভাবে ভোল্টেজ এবং অ্যাম্প এর নিশ্চয়তা প্রদান করে থাকে। আর এর নিশ্চয়তা কম্পিউটারের ওভারঅল হেলথের জন্য খুবই জরুরি একটা বিষয়।

 

৪। সাধারণ পাওয়ার সাপ্লাই ব্যবহারের কারণে কম্পিউটারের নানা যন্ত্রাংশ পুড়ে যাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। কিন্তু আপনি যদি একটা ব্র্যান্ডেড পাওয়ার সাপ্লাই ব্যবহার করেন তাহলে আপনার যন্ত্রাংশ সবসময় সুরক্ষিত থাকবে। কারন একটা ব্র্যান্ডেড পাওয়ার সাপ্লাই সঠিকভাবে প্রত্যেকটা কম্পোনেন্ট এর মধ্যে পাওয়ার ডিস্ট্রিবিউট করতে থাকবে।

 

৫। আমরা যখন হাইভোল্টেজ কিংবা লবনের সমস্যার সম্মুখীন হবেন তখন সাধারণত নিম্নমানের পাওয়ার সাপ্লাই গুলো এই সমস্যার সম্মুখীন হতে পারে না। যার ফলে আমাদের কম্পিউটারের বড় ধরনের ক্ষতি হওয়ার একটা সম্ভাবনা থেকে যায়। কিন্তু একটা ব্র্যান্ডেড পাওয়ার সাপ্লাই এই সমস্যাকে খুব সহজেই সম্মুখীন করতে পারে। এবং আপনাকে সব ধরনের ক্ষয়ক্ষতি থেকে বাচিয়ে দিতে পারে।

 

৬। আপনি যখন ভবিষ্যতে আপনার কম্পিউটার আপডেট করবেন কিংবা ভালো কোন পার্টস অ্যাড করবেন তখন আপনাকে পাওয়ার ইফিসিয়েন্সি ব্যাপারটা খেয়াল রাখতে হবে। আপনি যদি একটা ব্র্যান্ড এর পাওয়ার সাপ্লাই ব্যবহার করেন তাহলে আপনার ওই ব্যাপার নিয়ে খুব বেশি চিন্তা না করলেও চলবে।

 

৭। আমরা যদি লাইফটাইম কম্পেয়ার করি তাহলে সাধারন মানের পাওয়ার সাপ্লাই থেকে ব্র্যান্ডেড পাওয়ার সাপ্লাই অনেক বেশী দীর্ঘস্থায়ী হয়।

 

Read More: ল্যাপটপ ঠান্ডা রাখার কার্যকরী ৭টি উপায়

 

এছাড়াও আরও অসংখ্য সমস্যা রয়েছে একটি সাধারন মানের পাওয়ার সাপ্লাইয়ে। তাই আমাদের সবার উচিত কোনো সাধারণ মানের পাওয়ার সাপ্লাই ব্যবহার করে আমাদের কম্পিউটারকে ঝুঁকিতে না ফেলা। সামান্য কিছু টাকা বাঁচাতে গিয়ে সাধারণ মানের পাওয়ার সাপ্লাই কিনে আমরা আমাদের মূল্যবান অনেক যন্ত্রাংশকে ঝুঁকির মুখে ফেলে দিয়ে থাকি অনেক সময়। তাই পরবর্তী সময়ে পাওয়ার সাপ্লাই কেনার সময় অবশ্যই ব্র্যান্ডেড এবং নামিদামি কোম্পানির পাওয়ার সাপ্লাই কিনতে হবে।

 

ধন্যবাদ আশাকরি পাওয়ার সাপ্লাই সম্পর্কে আপনার যা কিছু জানার প্রয়োজন ছিল আপনি জেনে গেছেন। আপনার যদি পাওয়ার সাপ্লাই নিয়ে আরো কোন প্রশ্ন থাকে তাহলে আপনি আমাদের কমেন্ট করে জানাতে পারেন। আমরা আপনার সব প্রশ্নের উত্তর দেওয়ার জন্য প্রস্তুত।

 

For any data recovery service, check out –

Data Recovery Station: World Class Data Recovery Company in Bangladesh

Share With

You may also like

1 thought on “পাওয়ার সাপ্লাই কি? এর ব্যবহার এবং কোনটা ভালো?”

  1. মিজানুর রহমান

    একটা কম্পিউটার এ তো অনেক ধরনের যন্ত্র থাকে। প্রতিটা যন্ত্রের জন্যই কি নির্দিষ্ট মাপের পাওয়ার সাপ্লাই দরকার নাকি একটা দিয়েই সবগুলো কন্ট্রোল করা সম্ভব?

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Most Popular Post

Have You Lost Data!

We have ability of recuperating your data from all kind of digital storage devices